Travel

ঈদুল ফিতরের ছুটিতে, ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ২৩ এপ্রিল থেকে

এবছর পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটিতে 23 এপ্রিল থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট চালু করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। ঈদের ছুটিতে প্রত্যেক মানুষ ঢাকা শহর ছেড়ে নিজ বাড়িতে গিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে ঈদুল ফিতর উদযাপন করে। ঠিক সেই সকল মানুষের কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কাটার ব্যবস্থা করেছেন।

আপনারা যারা ট্রেনে ভ্রমণ করতে পছন্দ করেন, তারা  ২৩ এপ্রিল থেকে আপনার ভ্রমণের তারিখ অনুযায়ী অগ্রিম টিকিট কেটে রাখতে পারবেন। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বিশেষ কয়েকটি ট্রেন চালু করা হয়েছে। আপনি আপনার গন্তব্য স্থল অনুযায়ী আপনার প্রয়োজন মত টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। আপনাকে অগ্রিম টিকিট কেটে রাখার জন্য অবশ্যই এনআইডি কার্ড সাথে নিয়ে আসতে হবে।

আরও পড়ুন  গ্রীন লাইন পরিবহন ঢাকা টু কক্সবাজার ভাড়া, টিকিট কাউন্টার ঠিকানা এবং মোবাইল নাম্বার

ঈদে প্রচন্ড ভিড় হওয়ার কারণে এ বছর পুরুষ এবং মহিলা আলাদা আলাদা ট্রেনের বগি নির্ধারণ করা হয়েছে, নারীদের জন্য নির্দিষ্ট বগি নির্ধারণ করা হয়েছে। আপনি যদি অগ্রিম টিকিট কেটে রাখতে চান তাহলে 23 শে এপ্রিল আপনার নিকটস্থ রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে টিকিট ক্রয় করুন।

অথবা আপনি অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। ট্রেনের টিকিট অনলাইনে কিভাবে কাটবেন এর জন্য আমরা একটি লিংক সহ যুক্ত করব। অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম। এই পোস্টে গিয়ে আপনি দেখতে পারবেন কিভাবে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে হয়। অগ্রিম টিকিট সম্পর্কে আমরা আরও আপডেট তথ্য পেলে এই পোস্টে সংযুক্ত করব।

আরও পড়ুন  নাবিল পরিবহন (Nabil Paribahan) টিকিট কাউন্টার ঠিকানা, মোবাইল নাম্বার, অনলাইন টিকিট

ট্রেনে ভ্রমণের জন্য যদি কোন তথ্যের প্রয়োজন হয় তাহলে অবশ্যই আমাদের সাইটটি ভিজিট করতে ভুলবেন না। আশা করি পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে, আপনার নিকটস্থ বন্ধু-বান্ধবের মাঝে পোস্টটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আপনাদের মূল্যবান সময় দিয়ে সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন  মিয়ামি এয়ার কন্ডিশন বাস টিকিটের মূল্য, সকল জেলার কাউন্টার নাম্বার ও অনলাইন টিকিট

মুশফিক আর ইভান

হ্যালো, আমি মুসফিক আর ইভান। আমি বাংলাদেশের ট্রেন্ডিং টপিক নিয়ে লিখতে পছন্দ করি। মূলত, আমি শিক্ষা, প্রযুক্তি, বিনোদন, স্বাস্থ্য টিপস এবং খেলাধুলা নিয়ে লিখি। আমি ব্লগের বিষয়বস্তু লেখা এবং গবেষণার জন্য সর্বাধিক সময় ব্যয় করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button