Travel

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী, ভাড়ার তালিকা, টিকেট মূল্য, বন্ধের দিন এবং বিরতি স্টেশন

নীলসাগর এক্সপ্রেস বাংলাদেশের রেলওয়ে বিভাগের একটি আন্তঃনগর ট্রেন।এটি বাংলাদেশের উত্তরের জেলা নীলফামারী থেকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করে।এটি বাংলাদেশের একটি দ্রুতগামী ও বিলাসবহুল ট্রেন।আপনি যদি নীলসাগর এক্সপ্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে এই নিবন্ধটি আপনার জন্যই।আমরা এই নিবন্ধ নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের যাবতীয় খুঁটিনাটি বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করব।

নীলসাগর এক্সপ্রেস

নীলসাগর এক্সপ্রেস বাংলাদেশের রেলওয়ে একটি আন্তঃনগর দ্রুতগামী ট্রেন। নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি নাম্বার হচ্ছে  ৭৬৫/৭৬৬। ট্রেনটিতে আসনবিন্যাস আছে, ঘুমানোর ব্যবস্থা সহ খাদ্য সুবিধা রয়েছে। ট্রেনটি প্রতি ঘণ্টায় 100 কিলোমিটার বেগে চলতে পারে। ট্রেনটিতে এসি, নন এসি, শোভন এই তিন শ্রেণীতে যাত্রী সেবা দিয়ে থাকে।নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ২০০৭ সালের পহেলা ডিসেম্বর ঢাকা থেকে নীলফামারী রুটে চালু করেন তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার।পরিকাঠামোর কারণে নীলফামারী থেকে যাত্রা শুরু করতে পারে না।

যার ফলে উত্তর অঞ্চলের মানুষ মানববন্ধনসহ বিভিন্ন আন্দোলন শুরু করে।পরবর্তীতে বাংলাদেশ রেলওয়ে ২০১০ সালের সৈয়দপুর থেকে চিলাহাটি রেল পরিকাঠামো উন্নয়ন এর জন্য একটি প্রকল্প গ্রহণ করেন। এ প্রকল্পের আওতায় ২২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে চিলাহাটিতে একটি ওয়াশপিট সহ চিলাহাটি রেল লাইনের উন্নয়ন করা হয়।এরপর ২০১৫ সালের ২৮ শে জানুয়ারি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে ট্রেনের চিলাহাটি থেকে যাত্রা শুরু করে।

আরও পড়ুন  সাতক্ষীরা লাইন পরিবহনের (Satkhira Line Paribahan) সকল যোগাযোগের নম্বর, কাউন্টার ও ভাড়ার তালিকা

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে চিলাহাটি রুটে চলাচল করে। ট্রেনটি ঢাকা থেকে সকাল ৬.৪০ মিনিটে চিলাহাটির উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এবং চিলাহাটিতে পৌঁছায় বিকাল ৩ টা ৫ মিনিটে। অপরদিকে চিলাহাটি থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাত আটটায় ৮.০০ ছেড়ে যায়। এবং ঢাকায় পৌঁছায় ভোর ৫:৩০ মিনিটে। ট্রেনটি সপ্তাহে এক দিন বন্ধ থাকে।নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের ছুটির দিন রবিবার।

আরও পড়ুন  লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩, ভাড়ার তালিকা ও অনলাইন টিকেট

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশন সময়সূচী

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেন উত্তরের জেলা নীলফামারী চিলাহাটি থেকে যাত্রা শুরু করে রাজধানী ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে পৌঁছায়। যাত্রাপথে নীলসাগর এক্সপ্রেস আরো অনেকগুলো শহর কে অতিক্রম করে। এসব ট্রেলার রেলওয়ে স্টেশনে নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিরতি দেয়। আমি নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশনগুলোর নাম এবং দাঁড়ানোর সময় উল্লেখ করলাম।নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে চিলাহাটি উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় এবং রাস্তায় বিমানবন্দর স্টেশনে পৌঁছায় সকাল সাতটা সাত ৭.৭ মিনিটে, জয়দেবপুর রেলস্টেশনে ৭:৩৩ পৌঁছায়,নাটোর রেলওয়ে স্টেশনে ১১:১৬ এবং সান্তাহার রেলওয়ে স্টেশনে ১২:১৫ মিনিটে ট্রেনটি বিরতি দেয়।এরপর আক্কেলপুর, জয়পুরহা্‌ট, বিরামপুর, ফুলবাড়ি হয়ে পার্বতীপুর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেন বিরতি দেয় দুপুর ২ টা ১৫ মিনিটে।সর্বশেষ সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে ২:৪২ এবং নীলফামারী রেলস্টেশনে বিকাল ৩ টা ৫ মিনিটেএবং ডোমার রেলস্টেশনে পৌঁছায় বিকাল ৩ টা ২৬ মিনিটে।

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা

নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি বাংলাদেশের একটি বিলাসবহুল এবং দ্রুতগামী ট্রেন।ট্রেনটি বাংলাদেশের বিলাসবহুল এবং দ্রুতগামী হলেও এটি ব্যয়বহুল নয়। আপনি ট্রেনের টিকিট খুব সহজেই কিনতে পারবেন। এই ট্রেনের টিকিটের মূল্য খুব সহজলভ্য।নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটের মূল্য এর মানের উপর ভিত্তি করে হয়ে থাকে।আপনি যদি ভাল মানের আসন চান তবে আপনাকে মূল্য একটু বেশি দিতে হবে। বাংলাদেশ অফিশিয়াল রেলওয়ে সাইট থেকে সংগৃহীত ভাড়ার তালিকা আমি নিচে প্রদান করছি।নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের শোভন ৩৬০,  শোভন চেয়ার এর মূল্য  ৪৩৫ টাকা , প্রথম সিট ৫৭৫ টাকা, প্রথম বার্থ ৮৬৫ টাকা, স্নিগ্ধা ৭২০ টাকা, এবং এসিবার্থ ১২৯৫ টাকা। আমি নিচে একটি টেবিলের মাধ্যমে টিকিটের মূল্য খুব সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে দিলাম।

আরও পড়ুন  (দেখুন) অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম ২০২৩ – eticket.railway.gov.bd
আসন বিভাগ টিকেটের মূল্য
শোভন ৩৬০ টাকা
শোভন চেয়ার ৪৩৫ টাকা
প্রথম সিট ৫৭৫  টাকা
প্রথম বার্থ ৮৬৫ টাকা
স্নিগ্ধা ৭২০ টাকা
এসি বার্থ ১২৯৫ টাকা

আরও পড়ুনঃ

আমরা এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশ রেলওয়ে আরো অন্যান্য ট্রেনের টিকিটের মূল্য বিরোধী স্টেশন সময়সূচী নিয়ে আলোচনা করছি। আপনারা চাইলে অন্যান্য পোস্টগুলো ভিজিট করতে পারেন।আমাদের এই ওয়েবসাইটটি সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। আপনার যাত্রা শুভ হোক।

মুশফিক আর ইভান

হ্যালো, আমি মুসফিক আর ইভান। আমি বাংলাদেশের ট্রেন্ডিং টপিক নিয়ে লিখতে পছন্দ করি। মূলত, আমি শিক্ষা, প্রযুক্তি, বিনোদন, স্বাস্থ্য টিপস এবং খেলাধুলা নিয়ে লিখি। আমি ব্লগের বিষয়বস্তু লেখা এবং গবেষণার জন্য সর্বাধিক সময় ব্যয় করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!